Ultimate magazine theme for WordPress.

করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচাতে কলেজ ছাত্রী মাস্ক তৈরী করে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ

138

 

নয়ন বাবু, সাপাহার (নওগাঁ): “আসুন সবাই মিলে শপথ করি, করোনা মুক্ত গ্রাম গড়ি” এই স্লোগানকে সামনে রেখে মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচাতে অসহায় ও দরিদ্রদের কথা চিন্তা করে নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার সুলতানা নাসরিন নামের এক কলেজ ছাত্রী সেলাই মেশিনের মাধ্যমে নিজ হাতে মাস্ক তৈরী করে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করে যাচ্ছেন। উপজেলার দিবর ইউনিয়নের দিবর পশ্চিমপাড়ার বাসা এবং দি-হাঙ্গার প্রজেক্টের ইয়ূথ লিডার্স সুলতানা নাসরিন।

দি-হাঙ্গার প্রজেক্টের ইউনিয়ন সমন্বয়কারী হারুনুর রশিদ জানান, বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারী করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে মাস্ক তৈরী করে বিতরণ করে যাচ্ছেন। এছাড়াও সামাজিক দূরত্ব বজায়, নিয়ম মেনে ঘন ঘন হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা সহ মাস্ক ব্যবহার করার বিষয়ে জনসচেতন করেছেন। এসকল কার্যক্রমে সুলতানা নাছরিন কে সহযোগীতা করছেন বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থা দি-হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশ। করোনার এই মহামারীতে এ পর্যন্ত প্রায় ৮০০ মাস্ক তৈরী করে দিবর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করেন।

সুলতানা নাসরিনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, মহামারি করোনার ভাইরাসের কারণে আমাদের সকলকেই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। আমার এলাকায় অনেক মানুষের মাস্ক কেনার সামর্থ্য নেই। তাই আমি বাসায় সেলাই মেশিনের মাধ্যমে মাস্ক তৈরী করে গরিব ও অসহায়দের মাঝে মাস্ক বিতরণ করি।
মহামারি করোনা ভাইরাস যতদিন থাকবে ততদিন মাস্ক তৈরী করে বিতরণ সহ জনসচেতন কার্যক্রম অব্যহত থাকবে বলেও সুলতানা নাসরিন জানিয়েছেন।

সুলতানা নাছরিন-এর উদ্যোগকে ইউপি চেয়ারম্যান সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গগণ সাধুবাদ জানিয়েছেন।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.