Ultimate magazine theme for WordPress.

কোম্পানীগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের কীর্তনে হামলা ও ভাংচুর, আহত-৫, গ্রেফতার-১

923

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িতে অনুষ্ঠিত নাম সংকীর্তনে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় মন্দিরের পুরোহিতসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। উপজেলার ৪নং চরকাঁকড়া ইউনিয়নের অমূল্য শীলের বাড়িতে আজ বিকাল ৫টায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ ১ জনকে আটক করেছে।

 

সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে জানা যায়, প্রতি বছরের ন্যায় গতকাল ছিল স্থানীয় রাধাকৃষ্ণ সেবাশ্রমের বাৎসরিক নাম সংকীর্তন অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানটি চলা কালে স্থানীয় বাদশা, মিন্টু ও হান্নানের নেতৃত্বে একদল যুবক অতর্কিতে হামলা চালিয়ে অনুষ্ঠানের জন্য নির্মিত গেইট, মন্দিরে কীর্তনের জন্য নির্মিত প্যান্ডেল ও মন্দির ভাংচুর করে।

 

এসময় হামলাকারীরা বিপুল শীল, দুলাল বৈষ্ণব ও কীর্তন শুনতে আসা কয়েকজন মহিলাকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয় এবং চলন্ত কীর্তন বন্ধ করে দেয়। সংবাদ পেয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মো: ফজলে রাব্বি পুলিশ ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হামলার মূল হোতা বাদশাকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

 

এ বিষয়ে রাধাকৃষ্ণ সেব্রাশ্রমের সাধারণ সম্পাদক রাজীব শীল জানান, কেন এবং কি কারনে এ হামলা হয়েছে তা আমরা এখনো বুঝতে পারছিনা। তবে স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকজনের অভিযোগ বিকাল বেলা আছর নামাজের জামাত শেষ হওয়ার পূর্বেই তারা তাদের মাইক চালু করে  নামাজের বিঘ্ন ঘটানোর কারনে এ হামলা হয়েছে।

তবে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোক ও মন্দির কমিটির লোকদের দাবী আযান দেয়ার ১৫ মিনিট পূর্বেই আমরা মাইক বন্ধ করে দিয়েছি এবং নামাজ শেষ হওয়ার পর মাইক চালু করেছি।

 

বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে থাকলেও হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। কেউ ঘর থেকে বের হওয়ার সাহস করছেনা এমনকি মুখ খুলে কিছু বলতেও চাইছেনা।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচাজ সৈয়দ মো: ফজলে রাব্বি জানান, তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

প্রশান্ত সুভাষ/কেএইচপি

Leave A Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com