Ultimate magazine theme for WordPress.

ছাত্রলীগ সহসভাপতি জুয়েলকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় নাজমুলকে নিয়ে তুমুল সমালোচনা

1,946

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি নুরুল করিম জুয়েলকে নিয়ে ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমের একটি ফেসবুক স্টাটাসকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদের ঝড় চলছে ফেসবুক সহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে।

১৯ জুন রাত ১২.৩০ মিনিটে নাজমুল তার ফেসবুকে স্টাটাসে লেখেন “শুনলাম কোন মন্ত্রীর এক P.0 নাকি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি । সভাপতি সাধারন সম্পাদকও নাকি তাকে তোয়াজ করে চলে । ভালো তো………ভালোনা……..”

এতে করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এর বিপক্ষে প্রতিবাদের ঝড় বয়ে যায়। তুমুল সমালোচনার বিষয় হয়ে একসময়ের তুখোড় নেতা সিদ্দিকী নাজমুল আলম। অনেকে নিজের টাইমলাইন এ বিরূপ মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

নুর নবি স্বপন নামের এক ছাত্রলীগ কর্মী লেখেন ” প্রিয় সিদ্দিকী নাজমুল আলম ভাই, সারা বাংলার ছাত্রলীগ কর্মীদের মাঝে আপনি একজন আইডল। আমরা আপনাকে পছন্দ করি, ভালবাসি। আপনার লিখা গুলা, আপনার মতামত আমরা সবাই গুরুত্বের সাথে নিয়। ছাত্রলীগ আপনাকে সেই উচ্চ আসন দিয়েছে। সেই ছাত্রলীগেরই একজন তৃণমূল থেকে বেড়ে উঠা, আপনার একজন অনুজ ছাত্রনেতা, আপনার একজন ছোট ভাই হিসেবে MD Nurul Karim Jewel কে ছোট করে কিছু বলা আপনার ব্যক্তিত্বের সাথে যায় না। আপনি উনাদের ভুল ধরিয়ে দিবেন,উনেদেরকে শাসন করবেন এটাই আমরা আশা করি। সমালোচনা করবেন আপনার সমপর্যায়ে যারা আছে তাদের অথবা বড়দের। আমাদের কাছে নুরুল করিম জুয়েল একজন নম্র, ভদ্র এবং সদা বিনয়ী একজন ছাত্রনেতা। নুরুল করিম জুয়েলের আজকের এই অবস্থান কারো দয়ায় নয়। উনি আজকে যে পর্যায়ে এসেছেন এটা উনার যোগ্যতা। আপনি অনেক অযোগ্যকে যোগ্য বানিয়েছেন, নুরুল করিম জুয়েল নিজের যোগ্যতায় আজ এখানে। তৃণমূল থেকে রাজনীতি করে এসে উনার পর্যায়ে যাওয়া কঠিন। উনার এখনো ছাত্রলীগের রাজনীতি শেষ হয়নি, কিন্তু উনি এই মধ্যেই যে নির্যাতন নিপীড়নের স্বীকার হয়েছেন, মৃত্যুর খুব কাছ থেকে ফিরে এসেছেন, এমন ছাত্রনেতা আপনি খুব কম পাবেন। আসা করি আপনি আপনার ভুল বুঝতে পেরে উনার প্রতি আপনার বিদ্বেষ পরিহার করবেন। আমরা ছাত্রলীগ এক পরিবার, আক্রোশ নয় ভালবাসা হোক আমাদের পরম ধর্ম।”

এদিকে অনেকেরই ধারণা কৌশলে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির বর্তমান সহ-সভাপতিকে কটাক্ষ করলেন সাবেক ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।  তিনি শুধু ছাত্রলীগ নেতাকে উদ্দেশ্য করে মন্তব্য করেছেন এটি বলা যাচ্ছেনা। পরোক্ষভাবে তিনি আ’লীগ সাধারণ সম্পাদককেও ইঙ্গিত করেছেন। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে তিনি কখনো এটি করতে পারেননা। এটি শিষ্টাচার বর্হিভূত বলে অনেকে মনে করছেন।

তাঁর এ মন্তব্য অনেককে ব্যথিত করেছে অনেককে রাগান্বিত করেছে। আবার কিছু লোক আনন্দ উপভোগ করেছে।

বাস্তবতা হল, তার পোষ্ট কি আসলে একান্ত ব্যক্তিগত? নাকি পেছন থেকে কারো কোন এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য করা। নাকি অন্য কিছু। এমনতো হতে পারে কোন অন্যায় আবদার নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের কাছে গিয়ে তা বাস্তবায়ন করতে না পেরে তিনি কৌশলে পেছন থেকে আক্রমন করেছেন। ঢাল হিসেবে নিয়েছেন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নূরুল করিম জুয়েলকে।

সেসব কথা বাদ দিয়ে মূল কথায় আসা যাক। ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যদি নূরুল করিম জুয়েলকে তোয়াজ করে চলে, তাহলে তা সভাপতি ও সম্পাদকের জন্য ব্যর্থতা আর নূরুল করিম জুয়েলের জন্য সফলতা। জুয়েল নিশ্চয় তার কর্ম ও যোগ্যতা দিয়ে এ সম্মান অর্জন করে নিয়েছেন।

আপনি সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে এটিকে বাঁকা চোখে দেখছেন কেন? নিশ্চয় আপনার কোন অসৎ উদ্দেশ্য ছিল বা আছে।

গতকালকে আপনি আপনার আইডিতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমকে উদ্দেশ্য করে একটি লেখা লিখেছেন। সেখানে আপনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেছেন, আপনি সত্যিকারের হিরো। শুধু সেলফি বা গালগল্প দিয়ে নয় কর্ম দিয়ে আপনি আপনার যোগ্যতা অর্জন করেছেন। এখানে” সেলফি বা গলগল্প” শব্দ দুটির পেছনেও অনেকে গন্ধ শুঁকে বেড়াচ্ছে।

নাজমুল সাহেব আপনি ছাত্রলীগের মূল দায়িত্বে থাকা অবস্থায় মনে হয় কর্ম দিয়ে নূরুল করিম জুয়েলের মত সম্মান অর্জন করতে পারেননি। কিন্তু নূরুল করিম জুয়েল সহ-সভাপতি হয়েও আপনার চাইতে বেশী জনপ্রিয়।

 

কায়ছার হামিদ পাপ্পু

Leave A Reply

Your email address will not be published.