Ultimate magazine theme for WordPress.

নোয়াখালীতে মাদক নিরাময় কেন্দ্রে যুবক হত্যা

937

নোয়াখালী প্রতিবেদক:

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে ‘ক্রিয়া’ নামের একটি মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রে আবদুল হালিম (৩০) নামে এক মাদকাসক্ত যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। পরে খবর পেয়ে আজ বুধবার দুপুরে বেগমগঞ্জ থানা-পুলিশ নিহত যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে।

 

পুলিশ জানায়, নিহত আবদুল হালিম বেগমগঞ্জ উপজেলার হাজীপুর গ্রামের মৃত নুরুল হুদার ছেলে। তাঁকে প্রায় তিন মাস আগে ওই নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছিল। এ ঘটনায় পুলিশ আবদুল্লাহ আল-হারুন ওরফে মাছুম (৩৩) ও মোছলেহ উদ্দিন ওরফে সুমন (৩০) নামে নিরাময় কেন্দ্রের দুই কর্মচারীকে আটক করেছে। বাকিরা কেন্দ্র ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

 

পুলিশের ভাষ্য, বুধবার দুপুরে নিরাময় কেন্দ্রের কয়েকজন রোগী জানালার গ্রিল ভেঙে বাইরে গিয়ে আশপাশের লোকজনকে জানায় যে সেখানে আবদুল হালিম নামের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে। খবর পেয়ে বেগমগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে এবং নিরাময় কেন্দ্রের দুই কর্মচারীকে আটক করে। এ সময় কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন ছয় মাদকাসক্ত রোগীকেও উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তাঁদের অভিভাবকদের জিম্মায় দেওয়া হয়।

 

ওই চিকিৎসাকেন্দ্রের রোগী মো. আমিন অভিযোগ করেন, অভিভাবকেরা প্রতি মাসে মাসিক খরচ হিসেবে নিরাময় কেন্দ্রে ১৫ হাজার টাকা করে দেয়। কিন্তু কেন্দ্র থেকে তাঁদের ঠিকমতো খাবার দেওয়া হয় না। চিকিৎসার নামে কেন্দ্রের লোকজন তাঁদের হাত-পা বেঁধে প্রতিদিনই মারধর করত।

 

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সাজেদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাঁকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। লাশটি থানায় রয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

কেএইচপি

Leave A Reply

Your email address will not be published.