Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার কাগইলে বিদ্যুৎ শর্টসার্কিট থেকে সংখ্যালঘুর বাড়ী পুড়ে ভস্মীভূত, ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি

299

বগুড়ার কাগইলে বিদ্যুৎ শর্টসার্কিট থেকে সংখ্যালঘুর বাড়ি পুড়ে ভস্মীভূত হয়েছে। এতে ৪টি রুম পুড়ে ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার জানায়। বৃহস্পতিবার (৯এপ্রিল) দিবাগত রাত ১১টায় বগুড়ার কাগইল ইউনিয়নের সাহাপুর হিন্দুপাড়া গ্রামে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সাহাপুর হিন্দুপাড়া গ্রামের সংখ্যালঘু মৃত শ্রী রাজেন চন্দ্র দেবনাথের পুত্র বিকাশ চন্দ্র দেবনাথ শুধু বৃদ্ধা মা, আর তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই বাড়িতে বসবাস করত। বিকাশ চন্দ্র ইনডেক্স গ্রুপে চাকরি করেন রংপুর জেলার মিঠাপুকুর এলাকায়। বিকাশের স্ত্রী কিছুদিন পূর্বে নওগাঁ আতড়াই তার বাবার বাড়িতে বেড়াতে যায়। বাড়িতে শুধু তার মা শ্রীমতি শংকরী দেবী একায় ছিলেন।
বৃহস্পতিবার রাতে প্রথমে গোয়ালঘরে বিদ্যুৎ শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হলে তা পাশের সব ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এসময় প্রতিবেশীরা আগুনের লেলিহান শিখা দেখে চিৎকার শুরু করে। ততক্ষণে বিকাশের মা ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। ঘরে আগুন দাউ দাউ করে জ্বলছে কিন্তু তিনি তখনও টের পাননি। প্রতিবেশীরা জানালায় শব্দ করলে তিনি জেগে ঘর থেকে দ্রুত বের হওয়ার সময় দু’পা ও শরীরের বেশকিছু অংশ দগ্ধ হয়। মুহুর্তে আগুন বিকাশ দেবনাথের পুরো বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় প্রতিবেশীরা শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে দমকল বাহিনীর কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে এলাকাবাসীদের সহায়তায় আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। এক সময় তাদের রিজার্ভ পানি ফুরিয়ে গেলে তারা গাবতলী ফায়ার স্টেশনকে খবর দেয়। পরে দুটি ইউনিটের শ্বাসরুদ্ধোকর আপ্রাণ চেষ্টায় প্রায় ৩ঘন্টা মোকাবেলায় আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে তারা সক্ষম হয়। এ সময় ভিতরে থাকা আসবাবপত্র ও স্বর্ণালংকার টাকা পয়সা একটি দেড়লক্ষ টাকা মূল্যের বিদেশি জাতের গাভী সহ আগুনে সবকিছুই পুড়ে ভূস্মিভূত হয়ে যায়। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানায়।
দেশে দূর্যোগ লগ্নে বর্তমান সংখ্যালঘু পরিবারটি মানবেতর জীবন যাপন করছেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, গাবতলী থানা পুলিশ ও স্থানীয় ১নং কাগইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও কাগইল ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আগানিহান বিন জলিল তপন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.