Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার শাজাহানপুরে দুই পরিবারের মারামারিতে আহত ৬

132

মিজানুর রহমান মিলন, শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার শাজাহানপুরে জমিতে পানি সেচ নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে দুই পরিবারের মধ্যে অন্তত ছয়জন আহত হয়েছেন।গত ২৬ আগষ্ট বুধবার সকাল আনুমানিক সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার আমরুল ইউনিয়নের ক্ষুদ্র ফুলকোট গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন। স্থানীয়রা জানান, ক্ষুদ্র ফুলকোট গ্রামে সেচ স্কিম নিয়ে একই এলাকার আব্দুস সামাদ দেওয়ান এবং মোজাম্মেল হক দেওয়ান এর মধ্যে গত তিন বছর ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো। উপজেলা চেয়ারম্যান উভয়পক্ষকে ডেকে আপোষ মীমাংসা করে দেন। গত বুধবার সকাল আটটার দিকে মোজাম্মেল হক দেওয়ানের পরিবারের লোকজন তাদের সেচ পাম্পের ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করেন। খবর পেয়ে প্রতিপক্ষ আব্দুস সামাদ দেওয়ানের পরিবারের সদস্যরা নির্মাণ কাজে বাধা দেন। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। মারামারির ঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ছয়জন আহত হয়েছেন। আহতরা বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহতরা হলেন আবদুস সামাদ দেওয়ান, তার ছেলে ছাত্রলীগ নেতা শামীম, আব্দুর রশিদ, রবিন। অপর পক্ষের আহতরা হলেন, মোজাম্মেল হক দেওয়ানের ছেলে ফারুক হোসেন জুয়েল, এবং শাহাদৎ হোসেন। এ ঘটনায় মোজাম্মেল হক দেওয়ান বাদি হয়ে ছাত্রলীগ নেতা শামীম সহ ০৬ জনকে বিবাদী করে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। এদিকে ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি শামীম আহমেদ বাদী হয়ে ১৭ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ছাত্রলীগ নেতা শামীম বলেন, মোজাম্মেল হক দেওয়ানের ছেলে পুলিশ সদস্য ফরহাদ হোসেন (৩৫) একদল বহিরাগতদের ভাড়া করে নিয়ে এসে তাদের সেচ পাম্প থেকে ড্রেন করে বিলকেশপাথার কচুয়ার বিল পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিমিটেড এর বাঁধ কেটে সেচ স্কিমের ভিতরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় বাধা দিলে পুলিশ কনস্টেবল ফরহাদ হোসেন ও তার বাবা ভাই সহ বহিরাগত ভাড়াটিয়ারা ধারালো অস্ত্র ও লোহার রড লাঠিসেটা নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে বেদম মারপিট করে। এদিকে মোজাম্মেল হক দেওয়ানের ছেলে পুলিশ সদস্য ফরহাদ হোসেন বলেন, তিনি পুলিশের নায়েক। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) চাকরি করেন। ছুটিতে বাড়িতে এসেছেন। তিনি আরো বলেন, আমার বাবার নামে সেচ স্কিম। দীর্ঘদিন ধরে সেচ কাজ চালিয়ে আসছে। আমার দুই ভাই স্কিমের ড্রেন নির্মাণ করতে গেলে ছাত্রলীগ নেতা শামীম তার বাহিনী নিয়ে আমার দুই ভাইয়ের ওপর হামলা চালায়। এক ভাইয়ের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। আমি খবর শুনে দুই ভাইকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছি।এটাই আমার অপরাধ। শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)আজিম উদ্দিন জানান, দুই পক্ষের অভিযোগ তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com