Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার শিবগঞ্জের চন্দনপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ ৬ শিক্ষকের অবৈধ নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ।

640

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার শিবগঞ্জে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ ৬টি পদে অবৈধ নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চন্দনপুর ইউনাইটেড দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শুন্য পদে প্রধান শিক্ষক সহ ৬টি পদের জন্য তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বাদশা আলমগীর ২০০৯ সালে পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। এর প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক পদে তার শ্যালক মোঃ মোজাহারুল ইসলাম হান্নান ও তার স্ত্রী মোছাঃ হাফসা খাতুনকে মৌলভী পদে সহ ৬ জনকে নিয়োগ প্রদান করা হয়। ওই অবৈধ নিয়োগের সরকারি বেতন ভাতা বন্ধের দাবি জানিয়ে অত্র বিদ্যালয়ের সাবেক সদস্য ও চন্দনপুর গ্রামের মৃত: আব্দুস ছাত্তার প্রাং এর ছেলে মোঃ ওবাইদুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সরকারি অফিসে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। এব্যাপারে ওবাইদুর রহমান বলেন, বাদশা আলমগীর বিদ্যালয়ের কমিটিকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে সুকৌশলে সে ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার শ্যালক ও স্ত্রীকে নিয়োগ প্রদান করেছে। তিনি এ বিষয়ে সুষ্ঠ তদন্তের দাবি জানান। এ ব্যাপারে বাদশা আলমগীর বলেন, আমি সঠিক ভাবে নিয়োগ দিয়েছি কমিটি দ্বন্দ্বের কারণে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে। নিয়োগ বিধি মোতাবেক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। তবে আমাকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপূর্ণ করার জন্য আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হচ্ছে। এদিকে বর্তমান প্রধান শিক্ষক মোজাহারুল ইসলাম হান্নান বলেন, পত্রিকার বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানতে পেরে আমি নিয়োগে অংশ গ্রহণ করি। আমার মেধা ও শিক্ষাগত যোগ্যতার বলেই আমি চাকুরী পেয়েছি। এদিকে উপজেলা মধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে অভিযোগ পেয়েছি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে এ বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.