Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার শিবগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরে বসতবাড়িতে হামলা, থানায় মামলা, ৮লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

279

 

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের কেশরীপুরে (কল্ল্যাভিটা) পূর্ব শত্রুতার জেরে বসতবাড়িতে প্রতিপক্ষ কর্তৃক হামলায় ৮লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সাধন ও ১০জনকে গুরুত আহত করার ঘটনায় শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার সকাল আনুমান ৮ঘটিকার সময় মামলার ১নং আসামি রেজাউল করিমের হুকুমে পূর্ব শত্রুতার জেরে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বেআইনী জনতার সংঘবদ্ধ হয়ে অন্যায়ভাবে বাদী বাদশা মিয়া, তার পরিবারের লোকজন ও নিকট আত্মীয়স্বজনদের উপর হামলা চালায়। হামলায় বাদশা মিয়া, সেকেন্দার আলী, মাজেদা বেগম, ফুল মিয়া, শাহীন আকন্দ, সিরাজুল হক বাবু, মানিক আকন্দ, আবু আনাস, আবু তাহের, মোয়াজ্জেম, মামুনি গুরুতর জখম প্রাপ্ত হয়। হামলার এক পর্যায়ে তিনটি বাড়ির সকল আসবাবপত্র ভাংচুর করে টাকা পয়সা, স্বর্ণালংকার ও তিনটি গরু লুট করে নিয়ে যায়। যাহার মূল্য আনুমানিক ৮লক্ষ টাকা। খবর পেয়ে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছার আগেই আসামীরা পালিয়ে যায়। এঘটনায় বাদশা মিয়া বাদী হয়ে রেজাউল করিম, আঃ রহিম, রানা, শাহীন, জাহিদুল, মূসা, মোস্তা, কাদের, রব্বানী, জয়নাল, এমরান, মাহবুবসহ ৩০জনের নাম উল্লেখ করে ১৪৩, ৪৪৮, ৩২৩, ৩২৪, ৩২৫, ৩২৬, ৩০৭, ৪২৭, ৩৮০, ৩৫৪, ৫০৬, ও ১১৪ ধারায় শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করে। হামলায় গুরুতর আহত হয়ে মাজেদা বেগম শজিমেকে ও অপরাপর ভুক্তভোগীরা শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীঁন রয়েছে। হামলা ও লুটের বিষয়ে আহত সেকেন্দার আলী ও বাদশা মিয়া বলেন, বিনা উস্কানিতে কোন কারণ ছাড়ায় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমাদের লোকজনের উপর অন্যায়ভাবে হামলা করা হয়েছে। রেজাউল ও আঃ রহিমগং এর হুকুমে ৭০/৮০জন বেআইনি জনতায় সংঘবদ্ধ হয়ে আমাদের বাড়িঘড়ে হামলা চালিয়ে আসবাপত্র ভাংচুর, স্বর্ণালংকার এবং তিনটি দেশীগরু লুট করে নিয়ে যায়, যাহার আনুমানিক মূল্য ৮লক্ষ টাকা, আমরা এখন পথে বসেছি, কি করবো আল্লাহ্ ভালো জানে, আমরা উক্ত ঘটনার জন্য প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠ বিচার দাবী করছি। হামলার সত্যতা নিশ্চিত করে শিবগঞ্জ থানার অফিসার (ইনচার্জ) ওসি মিজানুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে, তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ১০জন আসামীকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে, বাকী আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত আছে। তবে সচেতন একটি মহল বলেছেন আঃ রহিম ও রেজাউলগংরা একালায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে, এদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

Leave A Reply

Your email address will not be published.