Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার শিবগঞ্জে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণের ১২টি ইউনিয়নের ডিলারদের নিয়ে এক জরুরী মত বিনিময়

245

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি: খাদ্য অধিদপ্তর কর্তৃক পরিচালিত খাদ্যবান্ধব প্রকল্পের আওতায় দরিদ্রদের স্বল্প মূল্যে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণের শিবগঞ্জ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ডিলারদের নিয়ে এক জরুরী মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার ১২টায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা হাফিজার রহমান মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবীর এর সভাপতিত্বে জরুরী মত বিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান, দিক নিদের্শনা মূলক বক্তব্য রাখেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কামাল উদ্দিন সরকার, সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বহী অফিসার বলেন, এই দুঃসময়ে ত্রাণের চাল বা ১০ টাকা কেজির চাল বিতরণে কোন অনিয়ম মেনে নেওয়া হবে না। বর্তমানে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা প্রতিরোধে রাতদিন নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। চাল বিতরণে কোন অনিয়ম পেলে সঙ্গে সঙ্গে ভ্রাম্যমান আদালতে শাস্তির ব্যবস্থা করতে প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন। তাই চাল বিতরণে কোন অনিয়ম মেনে নেওয়া হবে না। উক্ত জরুরী সভায় ডিলারদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শিবগঞ্জ ইউনিয়ন ডিলার শহিদুল ইসলাম শহিদ, তিনি বলেন পুরাতুন কার্ডে চাল বিতরণ করতে ব্যাপক সমস্যা হচ্ছে এই পুরাতুন কার্ডে নানা অনিয়ম রয়েছে। তাছাড়া দীর্ঘদিন যাবৎ অযতœ অবহেলায় কার্ডগুলো ফেলে রাখায় ভোক্তাদের ছবি ও নাম ঠিকানা যাচাই করতে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।এছাড়া তিনি আরো বলেন, গত কয়েক দিন আগে সৈয়দপুর ইউনিয়নে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় স্বল্প মূল্য ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ করা হয়েছে। সেখানে জনৈক ব্যক্তির বাড়ি থেকে ১শত ২ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। যা আমাদের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির চাল না। অনেক ভোক্তারা ১০ টাকা চাল উত্তোলন করে কিন্তু তাদের পারিবারিক চাহিদা না থাকায় অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রবাদি ক্রয়ের জন্য তা বিক্রি করে দেয়। এ সময় কিছু ফরিয়ারা এ চাল ক্রয় করেন। এর প্রেক্ষিতে তাদের চাল প্রশাসন ইতিমধ্যে আটক করেছে। যা ডিলারদের আওতায় পরে না। তিনি বিভিন্ন এলাকায় চাল ক্রয়কারী ফরিয়াদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান। এ আরো বক্তব্য রাখেন পিরব ইউপি ডিলার আব্দুল জলিল মোল্লা, ইয়াকুব আলী, সৈয়দপুর ডিলার আবুল কালাম আজাদ, আবু হানিফ, মামুন হাসান, বুড়িগঞ্জ ডিলার নিশিতোষ কুমার, আব্দুল লতিফ টুকু, বিহার ডিলার সেলিমুজ্জামান, মোকামতলা ডিলার এনামুল হক, আব্দুর রাজ্জাক, আশরাফুল ইসলাম, শিবগঞ্জ ডিলার আব্দুর রশিদ প্রমুখ। বক্তারা উপরোক্ত বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা খাদ্য পরিদর্শক মমতাজ বেগম, উপ-খাদ্য পরিদর্শক ফজলে রাব্বী।

Leave A Reply

Your email address will not be published.