Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার শেরপুরে ধর্ষককে জুতার বাড়ি দিয়ে সমাধান

164
স্টাফ রিপোটারঃ বগুড়ার শেরপুরের খামারকান্দি ইউনিয়নের ঝাঁজর উত্তরপাড়া গ্রামে গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনার বিচার করলেন আওয়ামীলীগ নেতা সেলিম হোসেন সহ আরো কয়েকজন। ধর্ষককে জুতার বাড়ি দিয়ে ঘটনা সমাধান করলেন তারা এমনকি বাদি বেলাল হোসেন রায় মানতে না চাওয়ায় তাকে একঘরে করার হুমকিও দিয়েছেন তারা। এতে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। কথা চালাচালি হচ্ছে সর্বত্র। ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাত ৩ টায় এই বিচার অনুষ্ঠিত হয়েছে। যানা যায়, উপজেলার খামারকান্দি ইউনিয়নের ঝাঁজর উত্তর পাড়া গ্রামের বেলাল হোসেনের স্ত্রীর কল্পনা বেগমের একই গ্রামের হাকিম উদ্দিনের ছেলে হেলাল উদ্দিনের সাথে দির্ঘদিন ধরে অবৈধ সম্পর্ক চলে আসছিল। বেলাল হোসেন তার দামি দামি গরু পাহারা দিতে গোয়াল ঘরে রাত্রি যাপন করায় কিছুই বুঝতে পারেনি। সেই সুযোগে গত ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে কল্পনা বেগমকে ফুসলিয়ে হেলাল উদ্দিনের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেদিন হেলালের বাড়িতেও কেউ ছিলনা। বেলাল বিষয় টি টের পেয়ে হেলালের ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে তাদের আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলে। পরে হেলাল ওই এলাকার মাতব্বর আওয়ামীলীগ নেতা সেলিম, রফিকুল ইসলাম, সোহরাফ উদ্দিন, আজি, সোলেমান ও মোংলাকে বিষয়টি মিমাংশা করে দিতে বলে। তখন মাতব্বররা রফিকুলের বাড়িতে বসে হেলাল কে জুতার বারি দিয়ে ছেড়ে দিতে বলে। এ রায় বেলাল মানতে না চাইলে তাকে এক ঘরে করে দেয়ার হুমকি দেয় মাতব্বররা। এমন ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃস্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে বিচারক সোহরাব আলী বলেন, আমিও বিচারে ছিলাম কিন্তু সেলিমের এমন বিচার দেখে আমি হতবাক হয়েছি ধর্ষণের বিচার শুধু মাত্র কয়েকটা জুতার বারি এই কথার বিরুদ্ধে বলায় তারা আমাকে বিচার থেকে চলে আসতে বলেছে তাই তখন আমি বিচার থেকে চলে এসেছি। এ ব্যাপারে বিচারক আওয়ামীলীগ নেতা সেলিম হোসেন বলেন ধর্ষণের কোন ঘটনা আমি জানিনা আর এর কোন বিচারও আমি করিওনাই। এ ব্যাপারে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ধর্ষনের কোন অভিযোগ আমরা পাইনি। পেলে দোষিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com