Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার শেরপুরে ৫২ গ্রামে ঢুকে পড়েছে বন্যার পানি

354

১০টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ৩৩০টি গ্রামের মধ্যে ৪টি ইউনিয়নের ৫২টি গ্রামে বন্যার পানি ঢুকে পড়েছে বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় । এতে আউশ ধান, শাক সবজি, রোপা আমন বীজতলা ও রোপা আমন আবাদের ক্ষতি হয়েছে।উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে, বন্যায় ১৭৮ হেক্টর জমিতে আউশ ধানের আবাদ, ৩৩ হেক্টর জমিতে শাকসবজি, ৩৭০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন বীজতলা ও ১২৫০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন আবাদ নিমজ্জিত হয়েছে। এতে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের সংখ্যা ৩ হাজার ৫৮৫ জন।যেসব গ্রামে বন্যার পানি ঢুকে পড়েছে সেগুলো হলো- গাড়িদহ ইউনিয়নের ৮টি গ্রাম -রামনগর, জুয়ানপুর, মহিপুর, বাংড়া, কানুপুর, ফুলবাড়ি, চকপাথালিয়া, রানিনগর।খামারকান্দি ইউনিয়নের ১৩ গ্রাম- মাগুড়ারতাইড়, খামারকান্দি, ঝাঁজর, খোকশাগাড়ি, বিলনোথার, পারভবানীপুর, নলডিঙ্গি, ঘোড়দৌড়, বোয়ালমারি, ভাতারিয়া, বেড়েরবাড়ি ও শুভগাছা, খানপুর ইউনিয়নের ২০ টি গ্রাম- চকখানপুর, দহখানপুর, খানপুর, গজারিয়া, বরিতলী,বোয়ালকান্দি, শৈল্লাপাড়া,তালপুকুরিয়া, পান্তাপাড়া, শালফা, শুবলী, শাফলজানি, চৌবাড়িয়া, নলবাড়িয়া, দড়িখাগা, গোপালপুর,ভাটরা, ভীমজানি, খাগা, ভান্ডারকাফুড়া।সুঘাট ইউনিয়নের ১১টি গ্রাম-সুঘাট, ফুলজোড়, চোমরপাথালিয়া, চকনশি, বেলগাছি, চকধলী, চরকল্যাণী, বিনোদপুর, ম্যাচকান্দি, জোড়গাছা ও সুত্রাপুর।এছাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিস সুত্রে জানা গেছে, বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হওয়ায় ১০ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এগুলো হলো চকখানপুর,চৌবাড়িয়া,বোয়ালকান্দি, ভস্তা,গজারিয়া, বরিতলী নতুনপাড়া, বরিতলী বালক,ঘোড়দৌড়,ঝাঁজর বিলনোথার ও সুবলী বঙ্গবন্ধু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.