Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ায় অবশেষে বিয়ের দাবিতে আমরন অনশনকারী প্রেমিকাকে ৬ দিন পর থানায় নিয়ে গেল পুলিশ

467

রায়হানুল ইসলাম, বগুড়া : বগুড়ার গাবতলী উপজেলার নেপালতলী ইউনিয়নের কালুডাঙ্গায় তিন বছরের অবৈধ সম্পর্ক পূর্ণতা দিতে প্রেমিকের বাড়িতে আমরন অনশন শুরু করা প্রেমিকা মাহমুদাকে ৬ দিন পর পুলিশ থানায় নিয়ে গেল। পরে তাকে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হাজির করে মেডিকেল চেকআপ করা হবে বলে ঐ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুজাউজ্জামান জানান। ২০ এপ্রিল ২০২০ ইং তারিখে গাবতলী মডেল থানা মাহমুদার বাবা ইউনুস আলী মন্ডল বাদী হয়ে ধর্ষণ মামলা করলে মাহমুদাকে গ্রামের হাজার হাজার মানুষের সামনে অসু¯’ অবস্থায় থানায় আনে। যা মামলা নং-১৩, ধারা ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন সংশোধনী ২০০৩ আইনের ৯(১) রুজু করা হয়। উল্লেখ, কালুডাঙ্গার আমজাদ হোসেনের পুত্র আবুল কালাম আজাদ মনিং-এর বাড়িতে গত বুধবার থেকে ধনঞ্জয় গ্রামের ইউনুস আলী মন্ডলের মেয়ে মাহমুদা বিয়ের দাবিতে আমরন অনশন শুরু করেন। মামলায় উল্লেখ করা হয়, ২০১৭ সাল থেকে বিয়ের প্রলোভনে তার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে এবং অবৈধভাবে তাদের শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে আবুল কালাম আজাদ। প্রতারণামূলকভাবে জনৈক মাওলানা দিয়ে বিয়ে পড়িয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ করতে থাকে। এভাবে চলতে চলতে বুধবার দুপুরে তারা দুজনে একত্র হয়ে আবুল কালাম আজাদ-এর বাড়িতে ঘর-সংসার করার ইচ্ছায় অবস্থান নেয়। কিন্তু আজাদের পরিবার তা মেনে না নেয়ায় একসময় আবুল কালাম আজাদ পরিবারের চাপে মাহমুদাকে রেখে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে মাহমুদাকে কোন অভিযোগ ছাড়াই পুলিশ বাড়ি থেকে টেনে হেচড়ে বের করে দেয় বলে মাহমুদা জানান। এসময় মাহমুদা আমরন অনশনে বাড়ির বাহিরে অব¯’ান নেয়। এদিকে মাহমুদার পিতা ইউনুস আলী মন্ডল মামলা করতে গেলে মামলা নিয়ে তালবাহানা শুরু হয়। পরবর্তীতে বিভিন্ন সোসাল মিডিয়া ও পত্রিকায় নিউজ প্রকাশ হলে ৬ষ্ঠ দিনে পুলিশ ইউনুস আলী মন্ডলের এজাহার গ্রহণ করা হয়।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.