Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ায় ৩৬ জন পথশিশুকে শীত বস্ত্র দিল পথের দিশা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

670

টানা দুই দিনের বৃষ্টির পর জেঁকে বসেছে শীত। সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ছিন্নমূল মানুষদেরকে। এই শীতে রেল বস্তিতে বসবাসকারী ৩৬ জন পথশিশুকে শীত বস্ত্র দিল পথের দিশা নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।সংগঠনটি বগুড়া রেল বস্তিতে কয়েক বছর ধরে পথের দিশা ভাসমান স্কুল পরিচালনা করে আসছে। ওই স্কুলে অধ্যয়নরত শিশুদের মাঝে  শীতের পোশাক বিতরণ করা হয়। প্রত্যেকটি শিশু একটি করে নতুন সোয়েটার ও ট্রাউজার পেয়ে উল্লাস প্রকাশ করে।

রেল বস্তিতে বেড়ে ওঠা শিশু রেশমা,সিহাব, জলিল,আলোরা জানায় শীতে তাদের কোন গরম কাপড় ছিলনা। এই প্রথম তারা নতুন পোশাক পেল। পথের দিশা স্কুলে লেখাপড়া করায় তারা এই প্রথম শীতের নতুন পোশাক পেল।

পথের দিশা ভাসমান স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম বলেন বগুড়া শহরের কিছু সমাজসেবী ব্যক্তির প্রচেষ্টায় বগুড়া রেল স্টেশন সংলগ্ন বস্তিতে স্কুল গড়ে তোলা হয়েছে। স্কুলে সুবিধা বঞ্চিত পথ শিশুদের বিনামূল্যে লেখাপড়া করানো হয়। এই শিশুদের কোন শীতের কাপড় ছিল না। একারণে স্কুল কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে ৩৬ জন শিশুকে শীতের পোশাক দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন সমাজসেবক বগুড়া সদরের ফাপোড় ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক মহরম আলী, সিরাজুল ইসলাম,এমদাদ আহম্মেদ বাবু প্রমুখ।

পথের দিশা ভাসমান স্কুলের সাধারণ সম্পাদক শামিম আহম্মেদ বলেন, সমাজে কিছু ভাল কাজের উদ্যোগ নিলে তা কখনই অসম্পূর্ণ থাকে না। যার একটি উদাহরণ ভাসমান স্কুল। কয়েকজনের ব্যক্তি উদ্যোগে গড়ে ওঠা স্কুলে ছাত্র-ছাত্রী দিন দিন বাড়ছে। তাদের শিক্ষার পাশাপাশি স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন নিয়েও কাজ করা হচ্ছে। শীতের পোশাক বিতরণ ছাড়াও শিশুদের নিয়ে পিঠা উৎসব, ফলের মৌসুমে ফল উৎসব করা হয়েছে। ঈদের সময় তাদেরকে পোলাও মাংস খাওয়ানো হয়। ভাল কাজে সহযোগিতার জন্য সমাজের সামর্থবানদের প্রতি আহবান জানান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.