Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়া মহিলাদল’র আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

296

বগুড়া জেলা বিএনপির আহবায়ক ও বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেছেন, সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় ব্যর্থ। বিচারকরা স্বাধীনভাবে বিচার করতে পারে না বলেই বেগম জিয়ার মুক্তি হয় না মন্তব্য করে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, মুখের কথায় না, আসুন রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে দেশের গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করি এবং দেশনেত্রীকে মুক্ত করি।

সিরাজ বলেন,জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। গণতন্ত্র আর ষড়যন্ত্র একসাথে চলে না। গণতন্ত্র নাই সে কারণেই ষড়যন্ত্র। তিনি বলেন, এই যে জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র- তাহলে জিয়া পরিবারের সদস্য সংখ্যা কতজন? শুধু বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, আরাফাত রহমান কোকো আর তাদের সন্তানেরা- এই কজন নয়। জিয়া পরিবারের সদস্য সংখ্যা বাংলাদেশের কম হলেও ১৬ কোটি। এই ১৬ কোটি মানুষ বাংলাদেশের ৫৬ হাজার বর্গমাইল জুড়ে বিস্তৃত। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার বগুড়া জেলা মহিলাদল আয়োজিত দলীয় কার্যালয়ের আলোচনা সভা,দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা মহিলাদলের সভানেত্রী লাভলী রহমানের সভাপতিত্বে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, হারানো গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের প্রতীক ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নির্ভিক নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে হাজার হাজার মাইল দুরে অবস্থান করেও নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন দেশনায়ক তারেক রহমান। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশকে স্বৈরাচারমুক্ত করতে যেমনিভাবে রাজপথে নেমেছিলেন একইভাবে দেশনায়ক তারেক রহমানও স্বৈরাচারের কবল থেকে দেশ ও জাতিকে উদ্ধার করতে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, তারেক রহমান সুদুরে বসেও প্রখর ধীশক্তি ও অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দলকে গোছানোর কাজে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির নেতাকর্মীরা বর্তমানে সুসংঘবদ্ধ। দেশ ও জাতিকে স্বৈরাচারের সকল অন্যায়-অপকর্মের ছোবল থেকে রক্ষা করে বহুদলীয় গণতন্ত্র পুণ:প্রতিষ্ঠায় তার অবদান দলের নেতাকর্মীদের নিকট অনন্য প্রেরণা। আলোচনা সভা,দোয়া ও ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল জেলা বিএনপির নেতা রেজাউল করিম বাদশা,বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আলী আজগর তালুকদার হেনা, জয়নাল আবেদিন চাঁন, জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য এম আর ইসলাম স্বাধীন, হামিদুল হক চৌধুরী হিরু,মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল, সহিদ উন নবী সালাম, কেএম খায়রুল বাশার,ভিপি অধ্যাপিকা শামিমা আকতার পলিন,বগুড়া জেলা যুবদলের আহবায়ক খাদেমুল ইসলাম খাদেম, যুগ্ম আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক এ বি এম মাজেদুর রহমান জুয়েল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক সরকার মুকুল, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবু হাসান,শেফালী হক, নিলুফা কুদ্দুস, শায়লা মুক্তা, উম্মে হাব্বিা মুক্তি, নাজমা আক্তার, সুবাইয়া জেরিন, সাহানা সানু, সসতা আরজু, সহমিনা রুমা, হোসনে আরা স্বপ্না, রোকেয়া বেগম, বিউটি বেগম, নয়ন তারা, শ্রাবনী আক্তার, হাজেরা বেগম প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.