Ultimate magazine theme for WordPress.

বালু উত্তোলনের সাথে ষড়যন্ত্র করে আমার নাম জড়ানো হয়েছে দাবী চেয়ারম্যান শাহীনের

1,139

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিবেদক :
অবৈধভাবে প্রভাবশালী মহলের বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মুখে পড়া সোনাপুর-জোরারগঞ্জ সড়কে সোনাগাজী-ওলামাবাজার-চরদরবেশ-কোম্পানীগঞ্জ ৬কিঃমিঃ সড়কের ছোট ফেনী নদীর উপর শতকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মানাধীন সেতুটি আজ হুমকির মুখে। নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে জড়িত কোম্পানীগঞ্জ ও সোনাগাজী এলাকার প্রভাবশালী কয়েকজনের নামে অভিযোগ পাওয়া গেলেও এ অভিযোগের ব্যপারে এবং বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীন।

প্রতিবাদে চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম চৌধুরী শাহীন জানান, নোয়াখালী বাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবী সোনাপুর-জোরারগঞ্জ সড়ক প্রকল্পের নির্মাণাধীন ছোট ফেনী সেতুটি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের দৃশ্যমান উন্নয়নের অন্যতম একটি প্রকল্প এ সোনাপুর-জোরারগঞ্জ সড়কটি। যার সুবিধা পেতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে আমার ইউনিয়ন ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলাসহ নোয়াখালীবাসী। আমার দলের সফলতা এবং সেতুমন্ত্রী যুগান্তকারী এ সফলতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারী কিছু সুবিধাবাদী ও দুষ্কৃতিকারী আমার নাম ব্যবহার করে কয়েকদিন ধরে ব্যবসার উদ্দেশ্যে নিজেরা নদীতে ড্রেজার বসিয়ে বালু তুলছে। যাদের সাথে আমার এ ধরনের কোন ব্যক্তিগত সম্পর্ক নেই। আমি এ ধরনের অবৈধ কাজের এবং অপপ্রচারকারীদের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

উল্লেখ্য, সোনাপুর-জোরারগঞ্জ সড়কের নির্মাণাধীন ছোট ফেনী সেতু’র পাশ থেকে প্রায় ১০-১২টি ড্রেজার বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ও ফেনীর সোনাগাজীর স্থানীয় প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতারা। সরকারি সকল নির্দেশনার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের পূর্ব অংশে ছোট ফেনী নদী থেকে এ অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে স্থানীয় কিছু রাজনৈতিক নেতা ও প্রভাবশালী ব্যাক্তি। এতে করে খালি হয়ে যাচ্ছে নদীর ভূ-গর্ভ। হুমকির মুখে পড়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্বপ্নের সোনাপুর-জোরালগঞ্জ সড়কের “সোনাগাজী-ওলামাবাজার-চরদরবেশ-কোম্পানীগঞ্জ ৬কিঃমিঃ সড়কের ছোট ফেনী নদীর উপর শতকোটি টাকা ব্যায়ে নির্মানাধীন ছোট ফেনী সেতুটি”।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ব্যপারে গত কয়েকদিন ধরে বেশ কয়েকটি গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পরও কোনভাবেই যেন বিষয়টি প্রশাসনের বা কর্তৃপক্ষের নজরে আসছেনা।

এক্ষেত্রে প্রভাবশালী মহলের কেউ বলছেন সেতুটির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রানা বিল্ডার্স বালু উত্তোলনের নির্দেশ দিয়েছেন আবার কেউ বলছেন ফেনী জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছেন। যদিও কেউই কোন রকম অনুমতির কাগজপত্র দেখাতে পারেনি।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.