Ultimate magazine theme for WordPress.

ভরা মৌসুমেও চালের দাম কম নয়

বগুড়ার মহাস্থান বাজার প্রতিবেদন-১

126

বগুড়ার ঐতিহাসিক মহাস্থানে প্রতিদিন নিত্য পন্যের বিপুল সমাহার নিয়ে বাজার বসে। মহাসড়কের পাশে হওয়ায় শহরের ছাড়াও আশেপাশের পল্লী এলাকা হতে নিত্যপণ্য ক্রয়- বিক্রয় করতে প্রতিদিন হাজার মানুষের আগমন ঘটে এ বাজারে। এমনকি মহাসড়কে যাতায়াত করার সময় অন্য জেলার মানুষও এখান থেকে তাজা শাক সবজিসহ হরেক রকম নিত্যপণ্য ক্রয় করে নিয়ে যান। উত্তরবঙ্গের অন্যতম বৃহৎ এ মিশ্র বাজারের ধারাবাহিক প্রতিবেদন চলবে নিয়মিত। আজ থাকছে ১ম প্রতিবেদন। ]

মহাস্থান বাজারে পাইকারী ও খুচরা মিলিয়ে প্রায় ১৫ টি চালের দোকান রয়েছে। দীর্ঘদিন যাবত এখানে এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের মধ্যে অন্যতম মিনহাজ উদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, বজলুর রহমান, মিজানুর রহমান,  কুদ্দুস মিয়া, আশরাফুল ইসলাম  প্রমূখ। জানা যায়, এ বাজারে প্রতিদিন আনুমানিক ১২০- ১৫০ মণ চাল বিক্রি হয়ে থাকে। এ সপ্তাহে চালের দাম মোটামুটি স্থিতিশীল। সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, বিভিন্ন প্রকার চালের মধ্যে চিকন চাল মান ভেদে প্রতি কেজি ৫০– ৫২ টাকা, মাঝারী মানের ৪৬ – ৪৮ টাকা এবং মোটা চাল ৪০-৪২ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। জানা যায়, গত সপ্তাহে প্রায় একই দামেই চাল বিক্রি হয়েছে। কৃষকের ঘরে নতুন চাল উঠায় বাজারে চালের কোন ঘাটতি নেই বলে পাইকারী ও খুঁচরা চাল ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন। বর্তমানে বাজারে চালের যে সরবরাহ রয়েছে, তাতে হঠাৎ করেই চালের দামে খুব বেশি উঠানামা হবে না বলে এখানকার চাল ব্যাবসায়ী রফিকুল ইসলাম জানান। তবে সরকারকে চুক্তিভিত্তিক ধান/ চাল সরবরাহ দেয়ার চাপ থাকায় মিল মালিকরা বর্তমানে প্রচুর ধান কেনায় ২/৩ দিন হলো বাজারে চালের দাম কিছুটা উর্ধমূখী বলে মিজান চাল ঘরের সত্ত্বাধিকারী মিজানুর রহমান মিজান জানিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, সরকার মিল মালিকদের স্বল্প সময়ের মধ্যে চাল সরবরাহ দেয়ার চাপে রাখায় তাদের মতো ব্যবসায়ীরা ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও বাজার থেকে চাল কিনে রাখতে পারছেন। সেহিসেবে যেকোন সময় চালের বাজার উর্দ্ধমূখী হওয়ার আশংকা ব্যক্ত করেন। এদিকে খুঁচরা বাজার থেকে নিয়মিত চাল ক্রেতা মো জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, প্রায় ২০ বছর ধরে তিনি এখান থেকে চাল কেনেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, তদারকি না থাকায় কখনও কখনো হঠাৎ করেই কোন কারন ছাড়াই চালের দাম বাড়ানো হয়। এতে করে তাদের মত নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের খুব সমস্যায় পরতে হয়। তাই, তিনি নিয়মিত বাজার তদারকির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানান।

ওবায়দুর রহমানম মহাস্থান ডটকম সংবাদ কর্মী

১২.০৬.২০২১

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.