Ultimate magazine theme for WordPress.

ভুক্তভোগীরা সর্বশান্ত শিবগঞ্জে পরিবেশক (ডিলার) কর্তৃক চাকুরী দেওয়ার নাম করে ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও

1,206

ভুক্তভোগীরা সর্বশান্ত
শিবগঞ্জে পরিবেশক (ডিলার) কর্তৃক চাকুরী দেওয়ার
নাম করে ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও

স্টাফ রিপোর্টারঃ  বগুড়ার শিবগঞ্জে মেসার্স সৌরভ এন্ড আলাউল এন্টার প্রাইজ এর পরিবেশক (ডিলার) আব্দুর রাজ্জাক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মাল দেওয়ার নামে অগ্রীম টাকা গ্রহন ও সেনা কর্মকর্তার ছেলে-মেয়েদের চাকুরী দেবার কথা বলে প্রায় শতাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়েছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে তার প্রতিষ্ঠানে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে পুলিশ।

জানা যায়, উপজেলা সদরের হাসপাতাল এর সামনে গত ২০ বছর যাবৎ বগুড়ার কাহালু উপজেলার কলাই ইউনিয়নের ছোট ভাদাহার গ্রামের জোব্বার মুন্সীর ছেলে মোঃ আব্দুর রাজ্জাক দোকান ঘর ভাড়া নিয়ে মেসার্স সৌরভ এন্ড আলাউল এন্টার প্রাইজ নামে প্রতিষ্ঠান দিয়ে শিবগঞ্জ, গাবতলী দুঁপচাচিয়া সহ কয়েকটি উপজেলার জন্য টেষ্টী সেলাইন, হরলিক্স, সেভিং ফম, প্যারাসুট তৈল, কুমারী তৈল, মাদার হরলিক্স, শিশু ময়দা, মশার কয়েল সেমাই, ইসপা পানি সহ বিভিন্ন প্রকার সামগ্রী পরিবেশক (ডিলার) হিসেবে ব্যবসা করে আসছেন। হঠাৎ করে গত কয়েকদিন যাবৎ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তাকে আর দেখা যায় না তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ব্যবসায়ী সহ সকলের সন্দেহ হলে গোটা এলাকায় বিষয়টি ছরিয়ে পড়লে শত, শত গ্রাহক তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে অবস্থান নেয়। আস্তে আস্তে বের হতে থাকে থলের বিড়াল। অনেকে জানান, আঃ রাজ্জাকের কাছে তারা প্রতারিত হয়েছে। পাওনাদারদের হাতে চেক ও দোকানের ম্যামো। কেউবা হাতে নিয়ে এসেছে এলজিইডি, ভূমি অফিস, বিদ্যুৎ অফিসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে যে টাকা নিয়েছেন তার সাক্ষরিত কাগজপত্র। গতকাল থানা সদরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এনামুল হক কান্না জনিত কন্ঠে বলেন আমি বাড়ি করার জন্য টাকা রেখে ছিলাম আমার ভাইয়ের সহ আমার ৭ লক্ষ টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে। বগুড়া শহরের নিশিন্দারা এলাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মিঠু মিয়া বলেন টেষ্টি সেলাইন দেওয়ার কথা বলে ১৮ লক্ষ টাকা নিয়েছে। তার কোন খোজ খবর না পেয়ে অবশেষে আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছি। এ ব্যাপারে রাঙ্গামাটিয়া গ্রামের অবসর প্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন, আমার ভাগিনা, ছেলে ও মামাতো ভাই কে ভূমি অফিসে ও এলজিইডি অফিসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে ২৫ লক্ষ টাকা নিয়ে প্রতারণা করেছে। পৌর এলাকার ইউনুছ আলী বলেন, ভূমি অফিসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে আমার নিকট থেকে ২ লক্ষ টাকা সে নিয়েছে। নাগর বন্দরের ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম বলেন মালামাল দেওয়ার কথা বলে ১০ লক্ষ টাকা নিয়েছে। আরিফুল ইষলাম সুজন বলেন কোম্পানির মালামা দেওয়ার কতা বলে ১৫ লক্ষ টাকা নিয়ে নিখোঁজ রয়েছে। নাগর বন্দরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এরশাদ হোসেন বলেন আমার নিকট থেকে ব্যাংকের ২টি চেক নিয়ে লোন করেছেন ২৫ লক্ষ টাকা, ৬ লক্ষ টাকা কোমল পানি দেওয়ার জন্য নিয়েছে। পৌর এলাকার পার লক্ষীপুর গ্রামের আবুল মালেক বলেন আমার নিকট থেকে ১ লক্ষ টাকা নিয়ে উধাও ব্যবসায়ী উজ্জল বলেন আমি তার নিকট থেকে মালামালের জন্য ১৫ হাজার টাকা দিয়েছি। আবু বক্কর হোসেন বলেন মালামালের জন্য তার নিকট থেকে ১৫ লক্ষ টাকা দিয়েছি। উপজেলার ভাইয়ের পুকুর বাজারে ব্যবসায়ী আঃ রাজ্জাক, সেলিম ও রশিদ তারা অভিযোগ করে বলেন আমাদের দোকানের জন্য বিভিন্ন মালামাল দেওয়ার কথা বলে ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। পাওনাদাররা তার সন্ধান না পেয়ে ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে থেকে ৫টি (লছিমন ভটভটি) ও ১টি মটর সাইকেল নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, থানায় অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। বেশ কয়েক জন ব্যবসায়ী বলেন এই প্রতারক রাজ্জাকের ফাঁদে পরে আমরা সর্বশান্ত হয়েছি। এখন আমাদের কি হবে। আমরা অবিলম্বে প্রতারক রাজ্জাক কে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.