Ultimate magazine theme for WordPress.

শিবগঞ্জে ছেলে বৃদ্ধ অন্ধ মাকে রাতের আঁধারে বাড়ির পার্শ্বে বাগানে নিক্ষেপ।

425

শিবগঞ্জে ছেলে বৃদ্ধ অন্ধ মাকে জোরপূর্বক বাড়ির পার্শ্বে মেহগুনি গাছের বাগানে নিক্ষেপ।

বগুড়ার শিবগঞ্জের পল্লীতে জমি নিয়ে বিরোধ পুত্র কর্তৃক বৃদ্ধ অন্ধ মাকে নির্যাতন ও স্কুল শিক্ষিকাকে মারপিট, মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে অভিযোগ।
জানা যায়, উপজেলার মোকামতলা ইউনিয়নের পূর্ব চাকলমা গ্রামের মৃত: হাফিজার রহমানের পরিবারের ১৮ শতাংশ জমির অংশ নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। হঠাৎ করে রাত ৯টা দিকে হাফিজার রহমানের স্ত্রী অন্ধ বৃদ্ধ তামবিয়া বিবি (৯০) এর ৩ ছেলে ও ৩ মেয়ে নিয়ে সে দীর্ঘদিন যাবৎ তার বড় ছেলে আব্দুল আওয়াল ও মেঝো ছেলে আঃ হামিদ এর বাড়িতে থাকতেন। গতকাল সন্ধ্যায় অন্ধ বৃদ্ধ তামবিয়াকে পার্শ্ববর্তী ছোট ছেলে আব্দুল হামিদ তার বাড়িতে রেখে আসেন সন্ধার পর। তার ছোট ছেলে আঃ হামিদ বাড়িতে বৃদ্ধ অন্ধ মাকে দেখতে পেয়ে জোরপূর্বক বাড়ির পার্শ্বে মেহগুনি গাছের বাগানে নিক্ষেপ করে। বাড়ির পার্শ্বের মসজিদের মুসল্লিরা বাগানে বৃদ্ধাকে পরে থাকতে দেখে হৈ চিল্ল্যা শুরু করে, পরে গ্রামবাসীরা বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে তার বড় ছেলের বাড়িতে নিয়ে আসে। বিষয়টি নিয়ে রাত অনুমান ১১ টার দিকে গ্রামের সমস্ত লোকজন মিলে একটি সমঝোতা বৈঠক বসে। কিন্তু বৈঠকে বার বার ডাকা সত্ত্বেও ছোট ছেলে আঃ হামিদ উপস্থিত হয়নি। কিছু পর রাতে উভয় পরিবারের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে ঝগড়া বিবাদ ও কথা কাটাকাটি সৃষ্টির এক পর্যায়ে আঃ হামিদ তার বড় বোন উপজেলার ভাকুন্দাহার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ছামিনা আক্তারকে কিল-ঘুষি মেরে আহত করে। এব্যাপারে নারী শিক্ষিকা ছামিনা বলেন, আমার ছোট ভাই সু-কৌশলে অন্ধ মার কাছ থেকে ১৩ শতক জমি লিখে নিয়ে তাকে দেখা শোনা করে না। তিনি আরো বলেন গতকাল রাতে আমার অন্ধ মা তার বাড়িতে গেলে জোরপূর্বক তাকে বাগানের ময়লা আবর্জনায় নিক্ষেপ করে। এব্যাপারে ছোট ছেলে আঃ হামিদ এর সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি বলেন, মাকে নিয়ে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হচ্ছে। এবিষয়ে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, এবিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। মোকামতলা ইউপি চেয়ারম্যান মোকলেছার রহমান বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি, তদন্ত করে এর সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবী জানাচ্ছি। মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অন্ধ বৃদ্ধ তামবিয়া বিবি সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তার দু’চোখে শুধু অশ্রু ঝড়ছে। তিনি কথা বলতে ও চোখে কোন কিছু দেখতে পারে না। উক্ত গ্রামের সমাজ সেবক আলহাজ্ব শওকাত হোসেন বলেন, সমস্যা সমাধানের জন্য রাতেই গ্রামে শালিসের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু আঃ হামিদ উপস্থিত না হওয়ার কারনে সমাধান করা সম্ভব হয়নি। এ বৃদ্ধের ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শত শত নারী-পুরুষেরা বৃদ্ধের এই ঘটনাকে ঘৃনার চোখে দেখে ঘটনার সাথে জড়িত ছেলের প্রতি ধীক্কার দিচ্ছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.