Ultimate magazine theme for WordPress.

সরকারের অধিনে নয়, নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধিনে–ওবায়দুল কাদের

672

কায়ছার হামিদ পাপ্পু :

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পৃথিবীর অন্যান্য গণতান্ত্রীক দেশে ক্ষমতাসীন সরকারের তত্ত্ববধানে যেভাবে হয় বাংলাদেশেও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন ক্ষমতাসীন শেখ হাছিনা সরকারের তত্ত্ববধানে অনুষ্ঠিত হবে। সরকার শুধু নির্বাচন তত্ত্ববধায়ন করবে। নির্বাচনে সরকার কোন মেজর পলিসি বা সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা থাকবে না। নির্বাচন কালীন সময়ে পুলিশ প্রশাসন, গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রনালয়গুলো ও নির্বাচনের সাথে সম্পৃক্ত সরকারের যে বিভাগগুলো দরকার সেগুলোও নির্বাচন কমিশনের অধিনে থাকবে।

 

এ সময় তিনি বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেন, কোন কোন বিরোধী দল বলে তারা এ সরকারের অধিনে নির্বাচনে যাবে না। তাদের জ্ঞাতার্থে বলেন, এ সরকারের অধিনে কোন নির্বাচন হবে না। সংসদ নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধিনে। এ সরকার অন্যান্য গণতন্ত্রীক দেশ ও আমাদের সংবিধান অনুযায়ী শুধু মাত্র নির্বাচন তত্ত্বাবধান করবে। নির্বাচন করার জন্য কোন সহায়ক সরকারের সুযোগ আমাদের সংবিধানে নেই।

তিনি বুধবার নিজ নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সরকারি মুজিব কলেজে নবীণ বরণ অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। নবীণ বরণ অনুষ্ঠানে সরকারি মুজিব কলেজের প্রফেসর জিয়া উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিভিন্ন দাবীতে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক ফারুক হোসেন, সরকারি মুজিব কলেজের শিক্ষার্থী সুস্মিতা সরকার।

অনুষ্ঠানে এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ড. মাহে আলম, পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরীফ, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক নাজমুল হক নাজিম, আওয়ামীলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি রেয়াজুল হক লিটন, সাধারণ সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র আবুল খায়ের, স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদের সদস্য ফখরুল ইসলাম রাহাত, পৌরসভা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শওকত আজিম জাবেদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন মুন্না, সাধারণ সম্পাদক হামিদুর রশীদ বিপ্লব, পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ ফরহাদ লিংকন, সাধারণ সম্পাদক আবদুল আউয়াল মানিক, কলেজ ছাত্রলীগের  সভাপতি নুর এ মাওলা রাজু, সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন রিয়াদ প্রমূখ।

মন্ত্রী শিক্ষার্থীদের শপথ করিয়ে বলেন, মাদককে না বল, ইয়াবাকে না বল, দূর্ণীতিকে না বল। মাদক আমাদের তরুন সমাজের একটা অংশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তাদের ভবিষ্যতকে ধ্বংস করছে। ইয়াবার ছোবল থেকে তরুন সমাজকে রক্ষা করতে দলমত নির্বিশেষে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। এ সময় তিনি পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়ে বলেন, যদি এখানে কেউ মাদক ব্যবসা করে সে যেই হোক, যেই দলেরই হোক সঙ্গে সঙ্গে যেন তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর দাবীতে তিনি বলেন, যে দাবীগুলোর কথা আজ আপনারা বলেছেন এগুলো কলেজ কতৃপক্ষ আমাকে আরো আগে বলা উচিত ছিল। কিন্তু কতৃপক্ষ আমাকে আগে জানাননি। ইতিমধ্যে কলেজের রাস্তার কাজের টেন্ডার হয়েছে। অনার্স কোর্সও শিগগিরই চালু হচ্ছে। সরকারি মুজিব কলেজ ও কবিরহাট কলেজের শিক্ষক সংকটের বিষয়ে আমি বার বারা শিক্ষা মন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি। সরকারের উচ্চ পর্যায়ে এ বিষয়ে আলোচনা চলছে। এ বছরের মধ্যে শিক্ষক সংকটের একটা সমাধান পাওয়া যাবে। শহীদ মিনার, কলেজ গেইট ও ভবন এগুলোর বিষয়ে এতদিন ঠিক মত আমার নজরে আসেনি। আমি ঢাকায় গিয়ে এগুলোর উদ্যোগ নিব। এসময় তিনি সরকারি মুজিব কলেজ প্রাঙ্গনে ফ্রি ওয়াইফাই এর উদ্বোধন করেন। এর আগে মন্ত্রী জৈতুন নাহার কাদের মহিলা কলেজ পরিদর্শন এবং পরে উপজেলা বামনী মহা বিদ্যালয়ে নবীণ বরণ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে নতুন ভবন উদ্বোধন করেন।

 

 

কেএইচপি

Leave A Reply

Your email address will not be published.