Ultimate magazine theme for WordPress.

হাসল তামিমের ব্যাট

833

জাতীয় লিগে বৃষ্টি-বিঘ্নিত সিলেটের বিপক্ষে ম্যাচে ছিলেন ১৩ রানে অপরাজিত। সবচেয়ে অনুজ্জ্বল রাজশাহীর বিপক্ষে। দুই ইনিংস মিলে ৪ রান। অস্ট্রেলিয়া সিরিজ স্থগিত হওয়ায় হঠাৎ বিরতিতে ‘অনুশীলন’ ঠিকঠাক হচ্ছিল না তামিম ইকবালের। আজ জাতীয় লিগের প্রথম দিনে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে হেসে উঠল বাঁহাতি ওপেনারের ব্যাট। তবে বৃষ্টির কারণে সেঞ্চুরির জন্য অপেক্ষা বেড়েছে তামিমের।
টসে জিতে চট্টগ্রামকে ব্যাট করতে পাঠায় বরিশাল। দারুণ শুরু এনে দেন দুই ভাই তামিম ও নাফিস ইকবাল। দুজনের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৯৮ রান। সোহাগ গাজীর বলে ৫৬ রানে নাফিস ফিরলেও সেঞ্চুরির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন তামিম। এ সময় বাধ সাধল বৃষ্টি। চা বিরতির খানিক আগে আলোকস্বল্পতায় খেলা গেল থেমে। খেলা আবার শুরু হলেও বেশিক্ষণ চলেনি বৃষ্টি বাগড়ায়। তামিম অপরাজিত ৯০ রানে। আগের ম্যাচে ৯০ করা মুমিনুল হক ফিরেছেন ১৬ রানে। তামিমকে সঙ্গ দেওয়া তাসামুল হক অপরাজিত ৩৯ রানে। দিন শেষে চট্টগ্রামের সংগ্রহ ২ উইকেটে ২০৬।
ওদিকে খুলনায় শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে সোহরাওয়ার্দী শুভ ও সঞ্জিত সাহার ঘূর্ণিতে রংপুরের বিপক্ষে ২১১ রানে গুটিয়ে গিয়েছে খুলনা। খুলনার পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৩ এসেছে মেহেদি মিরাজের ব্যাট থেকে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪১ করেছেন এনামুল হক। জাতীয় দলের আরেক সদস্য ইমরুল কায়েসের সংগ্রহ ২১ রান। শুভ ও সঞ্জিত নিয়েছেন চারটি করে উইকেট।
বগুড়ায় রাজশাহীর বিপক্ষে ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেনের সেঞ্চুরি ও রুমান আহমেদের ফিফটিতে প্রথম দিনটি নিজেদের করে নিয়েছে সিলেট। ৮২ রানেই ৪ উইকেট পড়ে গিয়েছিল সিলেটের। অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম উইকেটে ১৫৪ রান তুলে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যান ইমতিয়াজ ও রুমান। দিন শেষে সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৩৬ রান।
ফুতল্লায় আবদুল মজিদ ও রকিবুল হাসানের ফিফটিতে ঢাকা মহানগরের বিপক্ষে ঢাকা বিভাগের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৬১। রকিবুল অপরাজিত ৮৯ রানে। ওপেনার মজিদ ফিরেছেন ৬৬ রানে। মহানগরের পক্ষে আরাফাত সানির সংগ্রহে ৩ উইকেট।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com