Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়া সদরের শেখেরকোলায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে ব্রীজ, রাস্তা ও আবাদি জমি 

185
 বগুড়া সদর উপজেলার শেখেরকোলা ইউনিয়ানের তেলিহারা গ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত করতোয়া নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলনের ফলে এলাকার বেশ কয়েকটি গ্রামে প্রবেশের রাস্তা দেবে গিয়ে হুমকির মুখে পড়েছে। সরকারীভাবে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলনের কঠোর নিষেধাজ্ঞা থাকলেও এলাকার চিহ্নিত বালুদস্যুরা প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছে। এব্যাপারে এলাকাবাসি বগুড়া জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও সদর থানা পুলিশের নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়ে প্রতিকার দাবী করেছেন। কিন্ত কে শোনে কার কথা। এখন পর্যন্ত বালু উত্তোলন বন্ধে কার্যকর কোন ব্যবস্থা নেয়নি স্থানীয় প্রশাসন। স্থানীয় ভুক্তভোগীদের অভিযোগ ও সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা গেছে, বগুড়া সদর উপজেলার ৭নং শেখেরেকোলা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড তেলিহারা উত্তরপাড়া গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া করতোয়া নদী হতে স্থানীয় কিছু বালু ব্যবসায়ী বেশ কিছুদিন ধরে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে আবাদী জমির ভূগর্ভস্থ ও নদী থেকে বালু উত্তোল করছে। এর ফলে নদীর ধারের জমিগুলো ভেঙ্গে দেবে গেছে। সরকারী অর্থায়নে নির্মিত একটি ব্রীজ হুমকির মুখে পড়েছে। ২০১৯ সালের ৭ ফেবব্রুয়ারী একই স্থানে বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসির সঙ্গে বালু ব্যাবসায়ীদের সংঘর্ষ হয় এতে একজন নিরীহ কৃষক নিহত হয়। এ ব্যাপরে স্থানীয় ইউপি সদস্য এমদাদুল হককে প্রধান আসামী করে ২৫ জনের নামে একটি হত্যা মামলা হয় যা এখনও বিচারাধীন আছে। ভুক্তভুগী এলাকাবাসী জানায়, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ না হলে যে কোন সময় আবারও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটতে পারে। বালু উত্তোলনের ফলে বিরূপ প্রতিক্রিয়ায় পরিবেশগত ভারসাম্য যেমন নষ্ট হচ্ছে, তেমনি আবাদি জমিসহ আশপাশের গ্রাম, রাস্তা হুমকির মুখে পড়লেও অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের কোন জরুরী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসির অভিয়োগ ভূমি দস্যুরা প্রকাশ্যে তেলিহারা করতোয়া নদী থেকে শ্যালো মেশিন বসিয়ে ড্রেজিং এর মাধ্যমে কয়েক মাস যাবৎ অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে এবং ট্রাক যোগে এসব বালু অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার সময় কৃষকের বপনকৃত ফসল নষ্ট করছে। প্রায় শতাধিক কৃষকের কিছু কিছু আবাদি জমি সম্পর্ন ভেংগে দেবে গেছে,কোন জমির আংশিক ভেংগে গেছে। এব্যাপারে ভুক্তভুগি কৃষকরা নিজেদের শেষ সম্বল আবাদি জমি টুকু বালু উত্তোলনকারী ভুমি দস্যুদের হাত থেকে রক্ষাকরার জন্য উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। এ ব্যাপারে বগুড়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আজিজুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, তেলিহারায় বালু উত্তোলনের ব্যাপারে শুনেছি। দ্রুত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

 

এস আই শফিক বগুড়া (সদর) প্রতিনিধিঃ

Leave A Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com