Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার মহাস্থান হাটে শীতের সবজিতে ভরপুর, স্বাভাবিক দাম পেয়ে স্বস্তিতে ক্রেতারা

181

শীতের আগমন হালকা উপভোগ করলেও সবজিতে ভরপুর বগুড়ার ঐতিহাসিক মহাস্থানের প্রসিদ্ধ সবজির হাট। শীতের শুরুতে আগাম সবজির দাম চড়া হলেও চলতি সপ্তাহে তা কমতে শুরু করেছে।

এনিয়ে অনেকটা স্বস্তি প্রকাশ করেছেন সাধারণ ভোক্তারা। উত্তরবঙ্গের বিখ্যাত মহাস্থানের সবজি জেলার চাহিদা মিটিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। এহাটের সবজি প্রতিদিনি অর্ধশত ট্রাক যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। শীতের আগাম জাতের সবজি চাষে ভালো দাম মিলছে। এ অঞ্চলের চাষীরা সবজি চাষে ঝুকে পড়েন অনেক আগে থেকেই। কিন্তু এবার টানা বর্ষার কারণে শীতের আগাম ফসল বাজার জাত করতে অনেকে হিমশিম খেয়েছেন। যে-কারণে এবার শীতের মৌসুমি সবজি এক জোয়ারে উঠেছে। এজন্য আমদানী বাড়ার সাথে সাথে দাম অনেকটা কমে এসেছে বলে চাষীরা জানান। বগুড়া কৃষকেরা জানান, বর্ষা শুরুতে একই জমিতে তিন বার সবজি চাষ করেছি। কিন্তু বৈরী আবহাওয়ার কারণে সব ফসলের গোড়ায় পানি জমে পঁচন ধরে নষ্ট হয়েছে। শীতের শুরুতে আবারও সবজি চাষ করে বাজারে নিয়ে এসেছি। প্রতি বছরে শীতের আগাম সবজি আগে মহাস্থান হাটে আসে। কিন্তু এবার বিরূপ আবহাওয়ার কারনে থমকে গেছি। এবার আমাদের এলাকায় সবাই এক সাথে সবজি চাষ করার কারনে বাজারে পর্যাপ্ত আমদানি। এক সপ্তাহর ব্যবধানে দাম প্রায় অর্ধেকে নেমেছে। মহাস্থান হাটের পাইকারীরা জানান. আগাম জাতের সবজি আসার শুরুতে দাম ছিল অনেক বেশি। এখন সবজির আদমানি বেশি, দাম স্বাভাবিক এজন্য পুঁজি লাগছে কম। এ হাট থেকে অনেক পাইকার সবজি কিনে তারা দেশের বিভিন্ন বাজারে সরবরাহ করার পাশাপাশি খুচরা বিক্রি করে থাকেন। বগুড়ার মহাস্থান হাটের সবজি প্রতিদিন ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, নারায়নগঞ্জ, ফেনি, সিলেট অঞ্চলের বাজারে যাচ্ছে। বরিবার সকালে মহাস্থান হাটে গিয়ে দেখা যায়, শতশত নারী ও পুরুষ শ্রমিকেরা বস্তায় ভরাচ্ছেন সবজি। সেগুলো আবার ট্রাকে তুলছে শ্রমিকেরা। মহাস্থান পাইকারী কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা যায়, ১০ দিন আগে যে ফুলকপির দাম ছিল ৬০-৭০ টাকা কেজি। এখন প্রতি কেজি ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৮ টাকা থেকে ১২ টাকায়, বাধাঁকপি ১০টাকা পিচ, মুলা ৬ থেকে ৪ টাকা কেজি, শিম বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকায়, প্রতি কেজি বেগুন ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, লাউ ২০ থেকে ৩০ টাকা, ঢেঁড়শ ২০ টাকা, পটল ২০ থেকে ২৫ টাকা, করলা ৪০ টাকা, পালংশাক ১০টাকা, ধনেশাক ১০টাকা কেজি, মরিচ ৮০ কেজি, পাতা পেয়াজ ২২ টাকা কেজি, সাজনা ২০০টাকা কেজি। বুধবার ও শনিবার সাপ্তাহিক হাট বার ছাড়াও প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে এ হাটের বেচাকেনা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com